পালং শাকের ঘণ্ট

কি কি লাগবেঃ-


১০০ গ্রাম ছোট বড়ি, ৪ টি মাঝারি আলু ২ সেমি টুকরো কাটা, ৩টি মাঝারি মূলো ১ সেমি ডুমো করে কাটা, ৩৫০ গ্রাম রাঙা কুমড়ো ১ সেমি করে কাটা, ২টি বেগুন ২ সেমি টুকরো করে কাটা, ১ বড়ো চামচ হলুদ গুঁড়ো, ৪চামচ লঙ্কা গুঁড়ো, ৪ চামচ ধনে গুঁড়ো, ৫ চামচ লবন, ৩ চামচ চিনি, ২ চামচ ঘি, ১ কাপ নারকেল কোরা।

কিভাবে করবেনঃ-

১। একটু একটু ছিটিয়ে ১ বড় চামচ আদা ও ২ চামচ জিরে মিহি করে বেটে নিন।

২। মাঝারি আঁচে কড়াই বসান, ওতে মুগডাল, ঢেলে নেড়ে নেড়ে সোনালি বাদামী করে ভেঁজে নিন।

৩। ধুয়ে কেটে রাখা পালং শাক দিন ও আধা কাপ জল মেশান। ভাল করে নেড়ে কড়াই ঢাকা দিন। ফুল আঁচে রান্না হতে দিন ৫ মিনিট। আঁচ কমিয়ে আরো তিন মিনিট রাখুন।

৪। আঁচ থেকে কড়াই নামিয়ে আপনা থেকে ঠাণ্ডা হতে দিন। ঠাণ্ডা হলে ভিতরের রান্না একটি পাত্রে ঢালুন, এবার কড়াই ধুয়ে মুছে নিন।

৫। তারপর কড়াইতে তেল ঢেলে ৫ মিনিট গরম করুন। এবার বড়ি ঢেলে বাদামী করে ভেজে নিন। ভাজা বড়ী তুলে গুড়িয়ে নিন।

৬। এবার কড়াইয়ের তেলে বাকি জিরা বাটা ঢালুন, ক্যেক সাকেন্ড নাড়ুন। এরপর কেটা রাখা আলু ও মূলো মেশান, নেড়ে ১ মিনিট মতন ভেঁজে নিন। এবার কুমড়ো ও বেগুন মেশান, ভাল করে নাড়ুন। পরিমাণ মত জল দিয়ে কড়াই ঢাকা দিন।

৭। জোর আঁচে রান্না হতে দিন। আঁচ কমিয়ে ১ মিনিট রাখুন।

৮। আঁচ থেকে কড়াই নামান ও ঢাকনা খুলে দিন।

৯। এবার বড়ি, ঘি ও নারকেল কোরা ছাড়া শাক মেশানো রান্না মুগডাল ও বাকি মশলা মিশিয়ে নেড়ে নিন।

১০। জোর আঁচে কড়াই বসান। অনবরত নেড়ে ঝোল শুকিয়ে নিন।

১১। আঁচ থেকে কড়াই নামিয়ে উপর থেকে ঘি, বড়ি ও নারকেল কোরা ছড়িয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seventeen − thirteen =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.